Bangla sms

মাত্র ১৫ মিনিটেই মানুষকে মেরে ফেলতে পারে যে গাছ !

মাত্র ১৫ মিনিটেই মানুষকে মেরে ফেলতে পারে যে গাছ !মাত্র ১৫ মিনিটেই মানুষকে মেরে ফেলতে পারে যে গাছ ! বিশ্বাস না হলে, একটু খেয়াল করে পড়ুন, বিষয়টি পরিস্কার হবে। বাড়ির অথবা অফিসের সৌন্দর্য বৃদ্ধির জন্য অনেকেই পাতাবাহার গাছ লাগান। কিন্তু এই পাতাবাহারটি যে আদতে কি ভয়ংকর তা আমরা ঘুর্ণাক্ষরেও টের পাই না। এই গাছটির কারণে অসুস্থ হয়ে পড়তে পারেন আপনি, এমনকি মারাও যেতে পারেন।

 

বাড়িতে পাতাবাহার জাতীয় গাছ রাখতে ভালবাসেন অনেকেই। তবে গাছ রাখার আগে অবশ্যই জেনে নেওয়া প্রয়োজন গাছটি আমাদের কোন ক্ষতি করতে সক্ষম কি না। বিশেষ করে বাসায় ছোট শিশু থাকলে অবশ্যই সাবধান হওয়া প্রয়োজন।

 

এই যে গাছটির ছবি দেখছেন, তার পোশাকি নাম হলো Dieffenbachia এবং অফিস আদালতে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের বারান্দা বা করিডোরে এমনকি বাসা-বাড়ির বারান্দাতেও একে দেখা যায়। সুন্দর এই গাছটি যে আসলে আমাদের ক্ষতি করতে সক্ষম তা আমরা হয়ত কেউই জানি না।

 

একজন অভিভাবকের পরামর্শ হচ্ছে এটি, যে বাড়িতে ছোট বাচ্চা থাকলে আপনার উচিত হবে, এদের ব্যাপারে জেনে নিয়েই এসব গাছকে বাসায় রাখা। কারণ তার ৩ বছর বয়সী কন্যাশিশু ভুল করে এই গাছের একটি পাতা গিলে ফেলে। এতে তার জিহ্বা ফুলে যায় এবং তার মৃত্যু ঘটে। সামান্য অসাবধানতার কারণে এ মর্মান্তিক মৃত্যুর মত ঘটনা ঘটতে পারে আপনার জীবনেও।

 

Dieffenbachia খুব সুন্দর একটি পাতাবাহার। এই গাছের পাতায় থাকে ক্যালসিয়াম অক্সালেট নামের এক উপাদান, যা মানুষের কিংবা বাসার পোষা প্রাণীর জন্য ক্ষতিকর। তাই এটাকে বাসায় রাখা তো উচিতেই নয়, বরং তার পাশাপাশি বাইরেও এই গাছ দেখলে বাচ্ছাদেরকে এর কাছাকাছি যেতে দেবেন না।

 

এর প্রভাব এতই খারাপ যে, এর যে কোন অংশ খাওয়ার এক মিনিটের মাথায় একটি শিশুর মৃত্যু হতে পারে। প্রাপ্তবয়স্কদের মৃত্যু হতে পারে ১৫ মিনিটের মধ্যে। এমনকি, এই গাছ হাত দিয়ে ধরলে এবং এই হাত চোখে গেলে অন্ধত্বের সম্ভাবনা থাকে।

 

এই গাছ যদি  আপনার ঘর বা প্রতিষ্ঠান থেকে সরাতে না চান বা সরানো সম্ভব নাও হয়, তাহলে এর চারপাশে ঘেরা-বেড়া অথবা গ্রিল দিয়ে রাখুন যাতে, বাচ্চারা এর পাতার নাগাল না পায়। এতে দুর্ঘটনা ঠেকানো সম্ভব হবে।

 

ধন্যবাদ সবাইকে। ভাল লাগলে শেয়ার করতে ভুলবেন না।